ভালোবাসার মানুষকে ফিরে পেতে প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধর্ণায় প্রেমিক, অবশেষে বিয়ে হয় দুজনের

77bfeb44-e22f-41c3-b050-021219dff703-1559627693জাতীয় ডেস্ক, জলপাইগুড়ি, ০৪ জুন ।। “আমার ভালোবাসার দাম দেও, আমার ৮ বছর ফিরিয়ে দেও”। হ্যাঁ একোন সরকারি দাবি নয়। এই দাবি রেখেছে এক প্রেমিক তার প্রেমিকার কাছে।
ধরনায় বসে এতদিন রাজনীতিতে অনেক কিছুই অনেকে জিতে নিয়েছেন। বহু আন্দোলনেও দেখা গিয়েছে ধরনা। তবে প্রেমিকাকে ফিরে পেতে বা প্রেম ফিরে পেতে প্রেমিকার বাড়ির সামনে আমরণ অনশনে বসতে সম্ভবত কাউকে দেখা যায়নি এযাবৎকাল। আর এই কাণ্ডই করে দেখালেন বাঙালি ছেলে অনন্ত বর্মণ। ঘটনাস্থল জলপাইগুড়ি। অনন্ত আর লিপিকার প্রেম ছিল আট বছরের পুরনো। তবে সাম্প্রতিককালে কিছু ঘটনা ঘটবার পর থেকেই লিপিকা আর অনন্তের সম্পর্কে চিড় ধরে। এরপরই লিপিকার সঙ্গে এক সরকারী কর্মচারীর বিয়ে ঠিক হয়।
614d0f17-7cd4-44eb-89f0-2911c2a1a9ba-1559627700জলপাইগুড়ির অনন্ত , প্রেমিকার বিয়ের ঠিক হওয়ার সংবাদ শুনতে পেয়েই কোনও কথা না ভেবে, তাঁর বাড়ির সামনে ধরনায় বসে পড়ে। প্রশ্ন তোলে, কেন অনন্তর ফোন ধরছেন না প্রেমিকা? কেন প্রেমিকা হোয়াটস অ্যাপের মেসেজের প্রত্যুত্তর দিচ্ছে না? ধরনায় বসে, অসসুস্থ হয়ে পড়ে অনন্ত। খবর পেয়ে সোমবার সকালে ঘটনাস্থলে পৌছায় ধুপগুড়ি থানার পুলিশ। তাঁকে তুলতে গেলে অনন্ত পুলিশকে জানান, ওই যুবতীর সঙ্গে তাঁর ভালোবাসার প্রমান হিসেবে মোবাইলের এসএমএস সহ একাধিক ছবি তিনি দেখাতে পারেন। তাই ভালোবাসার দাম এবং ৮ বছর ফিরিয়ে না দেওয়া পর্যন্ত তিনি প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধরনা চালিয়ে যাবেন বলেও জানিয়েছেন অনন্ত।
দীর্ঘ ধরনার পর শেষে অনন্তর প্রেমই জিতে যায়। ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া’ নিয়ে চলে যায় শেষমেষ। অনন্তর অবস্থা দেখে ঠিক থাকতে পারে না প্রেমিকা লিপিকা। এরপরই তাঁর ধরনায় এসে অনশন ভাঙিয়ে প্রেমিকের দাবিতে সায় দেয় লিপিকা। সোমবার সবার আশির্বাদ নিয়ে বিয়ে হয় দুজনের।

FacebookTwitterGoogle+Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>