সাগরের নিচে ১০ হাজার বছর আগের বনের সন্ধান

seeআন্তর্জাতিক ডেস্ক ।। দক্ষিণ সাগরে ১০ হাজার বছর আগের বনের সন্ধান পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, প্রাক ঐতিহাসিক যুগের এ বনটি ইউরোপ পর্যন্ত প্রসারিত হতে পারে। ৪৫ বছর বয়সী নারী ডুবুরি ডন ওয়াটসন এ বনের সন্ধান পেয়েছেন।
দক্ষিণ সাগরের নরফোক উপকূলের ৩শ’ মিটার গভীরে অনুসন্ধানে পাওয়া গেছে এ বনের অবস্থান। ডুবুরি ওয়াটসন গণমাধ্যমকে জানান, ৮ মিটার দীর্ঘ ওক গাছের ডালপালাসহ নানা জীববৈচিত্র্যের রয়েছে বনটিতে। বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন নরফোক উপকূলটি বরফের যুগে বিলীন হয়ে গিয়েছিল।

তারা মনে করেন, শীতকালের কোনো এক ঝড়ের মৌসুমে বরফ গলে এ বনটি সমুদ্রগর্ভে তলিয়ে যায়। ওয়াটসন সামুদ্রিক সংরক্ষণ সোসাইটির জরিপ প্রকল্পে পূর্ব এঙ্গোলায় কাজ করছেন। জরিপ কাজ পরিচালনা করতে ওয়াটসন একেবারে রোমাঞ্চিতভাবে বনটি আবিষ্কার করেন।
ওয়াটসন জানান, সাগরের ৩’শ মিটার গভীরে রোমাঞ্চিত এ দৃশ্য দেখে প্রথমে তিনি বিশ্বাস করতে পারেননি। সাগরের তলদেশে বালু ও কালো পাথরের মতো আবরণ দেখে অবাক হন। পরে লাফিয়ে এক প্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে যান। একেবারে কাছ থেকে দৃশ্যটি দেখার চেষ্টা করেন।

দেখেন, মাটি ঘেষে লেগে আছে গাছের শাখা প্রশাখা। দেখতে দারুণ এ বনের গাছগুলো হাজার বছর ধরে পড়ে আছে। এ ধরনের বন দেখে যে কেউ স্থানটি ত্যাগ করতে চাইবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি।
ওয়াটসন ১৬ বছর ধরে দক্ষিণ সাগরে বিভিন্ন জরিপ ও অনুসন্ধানমুলক কাজ পরিচালনা করে আসছেন। সাগরের তলদেশে এ বনের গাছগুলো শতশত একর জায়গা জুড়ে রয়েছে বলে তিনি জানান।
বরফযুগে যখন বরফ গলতে শুরু করে তখন উপকূল সাগরের ১২০ মিটার গভীরে তলিয়ে যায়। প্রাকৃতিক দুর্যোগে উপকূল ডুবে গেলেও তলদেশে রঙ্গিন মাছ ,গাছগাছালি ও জীববৈচিত্র দেখে মনে হয় নতুন একটি সভ্যতা তৈরি হয়েছে।

FacebookTwitterGoogle+Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*