কৃষি দপ্তরের উদ্দ্যোগে কৃষকদের উন্নয়নে কৃষি জমিতে নতুন পাওয়ার ট্রেইলার মেশিনের প্রদর্শন

বিশ্বেশর মজুমদার, শান্তিরবাজার, ১৫ মে || রাজ্য সরকার চাইছে কৃষকদের আয় দ্বিগুন করতে। রাজ্য সরকারের এই উদ্দ্যেশ্যকে সাফল্যমন্ডীত করতে কাজ করে যাচ্ছে বগাফা কৃষি দপ্তর বগাফা কৃষি দপ্তরের তত্বাবধায়কের উদ্দ্যোগে বিগতদিনেও কৃষকদের কাছে বিভিন্ন উন্নতমানের মেশিন পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। শান্তিরবাজার মহকুমার কৃষকরা যে সকল কৃষিজ উৎপাদন সামগ্রীর সঙ্গে পরিচিতি ছিলোনা সেইসকল সামগ্রীর সাথে পরিচিতি করিয়েছেন বগাফা কৃষিদপ্তরের তত্বাবধায়ক সুজিত কুমার দাস। তিনি প্রতিনিয়ত রোদে বৃষ্টিতে কৃষকদের মাঠে গিয়ে কিভাবে ভালো পরিমানে কৃষিজ ফসল উৎপাদন করা যায় তার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এরইমধ্যে কৃষকদের অর্থ ও সময় শাশ্রয়ের কথা চিন্তা ভাবনা করে সোমবার কৃষকদের মাঠে নতুন পাওয়ার ট্রেইলার মেশিন নিয়ে আসা হলো। এই মেশিন দিয়ে এক কানি জমি চাষ করতে ৩০ মিনিট সময় লাগে যা অন্যান্য মেশিনে প্রায় দের থেকে দুই ঘন্টা লেগে যায়। এছারা অন্যান্য মেশিন দিয়ে দুইবার চাষ দিয়ে যতটুকু ড্রাইভ হবে এই মেশিনে একবার চাষে সেই ড্রাইভ করা যায়। এই মেশিন দিয়ে কৃষিজ জমি চাষের পাশাপাশি ট্রেইলার লাগিয়ে কৃষকদের উৎপাদিত কৃষিজ সামগ্রী পরিবহন করা যাবে। এছারা কৃষিকাজে ব্যাবহৃত সার ও জৈবিক সার অতিসহজে এই মেশিনের মাধ্যমে কৃষিজ জমিতে পৌঁছানো যাবে। সোমবার ডেমোষ্ট্রেশানে কৃষি দপ্তরের তত্বাবধায়ক সুজিত কুমার দাস সহ কৃষি দপ্তরের অন্যান্য আধিকারিকরা উপস্থিত ছিলেন। এই উন্নতমানের মেশিনের আগমনকে কেন্দ্র করে মাঠে উপস্থিত কৃষকদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনা লক্ষ্য করা যায়। এই কর্মসূচী সম্পর্কে সংবাদমাধ্যমের সামনে জানাতে গিয়ে কৃষি দপ্তরের তত্বাবধায়ক সুজিত কুমার দাস জানান, কৃষকরা চাইলে এই মেশিন ক্রয় করতে পারেন। এই মেশিন ক্রয়ের জন্য রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে সাবসিডির মাধ্যম অনুদান দেওয়া যাবে। যদি কোনো কৃষক এই মেশিন ক্রয় করতে চান তাহলে কৃষি দপ্তরের নিকট আবেদন করলে কৃষি দপ্তরের তত্বাবধায়ক এই আবেদন পত্র উনার উর্ধতর কতৃপক্ষের নিকট প্রেরন করবেন। তিনি জানান, এই মেশিন ক্রয় করলে কৃষকদের সময় ও অর্থ সাশ্রয় হবে। কৃষকদের এইধরনের নতুন পাওয়ার ট্রেইলারের সাথে পরিচিতি করানোর ফলে কৃষকরা কৃষি দপ্তরের তত্বাবধায়ককে অনেক ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

FacebookTwitterGoogle+Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*