ভারতে ‘গোপন নজর’ রাখছে পাকিস্তান

pakজাতীয় ডেস্ক ।। ভারতের বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির নতুন নতুন কৌশল আঁটছে পাকিস্তান। এ ক্ষেত্র একটি সুযোগও হাতছাড়া করতে নারাজ তারা। এবার ‘ইউএভিএ’ প্রযুক্তি নিয়ে নতুন বিতর্ক শুরু হয়েছে। শনিবার ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ অভিযোগ করেছে, আনম্যান এরিয়াল ভেহিকেল সিস্টেম (UAVS) থেকে স্পাই ক্যামেরার মাধ্যমে সীমান্তে ভারতের ওপর ২৪ ঘণ্টা নজরদারি চালাচ্ছে পাকস্তানি সেনারা। বিএসএফের রাজস্থান ফ্রন্টিয়ার রবি গান্ধী জানান, ভারতে গুপ্তচরবৃত্তি করতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সাহায্য নিচ্ছে পাকিস্তান। সম্প্রতি ভারতের তরফে তীব্র আপত্তি জানানো হলে, আপাতত নজরদারি চালানো বন্ধ রাখে পাকিস্তান। তবে, সীমান্তের কিছু জায়গায় এখনও স্পাই ক্যামেরা যে রয়ে গিয়েছে, তা স্বীকার করে নেন রবি গান্ধী। গত এপ্রিলে বিএসএফ জওয়ানরা টহলদারি দিতে গিয়ে উঁচু থেকে পড়া ‘চলমান আলো’ দেখতে পান। ভারতীয় সীমান্ত থেকে বড়জোর ১৫০ থেকে ৪০০ মিটার দূরে, পাকিস্তানের দিকে রহস্যজনক সেই আলোর চলাফেরা চোখে পড়ে। ডিআইজি রবির বলেন, সেটা কীসের আলো, তা এখনও আমাদের কাছে স্পষ্ট নয়। তবে, ওরা যে ড্রোন বা ইউএভি জাতীয় জিনিস ব্যবহার করছে, এর প্রমাণ আমরা পেয়েছি। এর পর ভারত প্রতিবাদ করলে, পাকিস্তানি রেঞ্জার্স ড্রোনে গুপ্তচরবৃত্তি বন্ধ রাখে। তবে, এখন ড্রোনের বদলে, পাকিস্তানি সেনারা সীমান্তে বসাচ্ছে স্পাই ক্যামেরা। বরমের, জয়শালিমের, বিকানের এবং গঙ্গানগর সীমান্তে তেমন কয়েকটি ক্যামেরা বিএসএফের নজরে পড়েছে। ভারত ফের আপত্তি করলে, কয়েকটি স্পাই ক্যামেরা সরিয়ে ফেলা হয়। তবে কিছু ক্যামেরা এখনও রয়ে গিয়েছে বলেই ধারণা বিএসএফের ওই কর্তার। বিকানেরে লোকল কয়লামাফিয়াদের দৌরাত্ম্য নিয়েও যথেষ্ট চিন্তিত মনে হল বিএসএফের ওই কর্তাকে। তাঁর দৃঢ় ধারণা, পাকিস্তান কয়লার এই চোরাকারিবারিদেরও ভবিষ্যতে কাজে লাগাতে পারে।

FacebookTwitterGoogle+Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*