নেভির গোয়েন্দাগিরিতে রোবট মাছ

Untitled-1আমেরিকান নেভির গোয়েন্দাগিরিতে এবার যুক্ত হলো মাছ! তা-ও আবার যে সে মাছ নয়, এক্কেবারে রোবট মাছ!
ব্লুফিন টুনা মাছের আদলে গড়া হয়েছে প্রায় ফুট পাঁচেক লম্বা এই টুনা মাছটি৷ এতখানি পড়ে নিশ্চয়ই প্রশ্ন জাগছে, কী কী কাজ করবে এই রোবট মাছ?
এর উত্তরে বলতে হয় কী করবে না? কখন শত্রু জলসীমায় প্রবেশ করল, কখন শত্রু জাহাজের গতিবিধি কী হবে, উপকূলবর্তী এলাকায় কখন কী চলছে না চলছে, জাহাজের সংকেত সব বিষয়েই পুঙ্খানুপুঙ্খ নজরদারি রাখবে সে৷ আর সময়ে সময়ে নেভিতে পাঠাতে থাকবে খবরও৷
আর এতেই থেমে থাকছে না৷ যদি রোবট মাছটিতে আরো একটু বেশি উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করা যায় তাহলে সমুদ্রের স্রোত, জোয়ার ভাঁটা, আবহাওয়ার পরিবর্তন, কারেন্টের ব্যাপারগুলো সম্পর্কেও আগাম সতর্কতা পাওয়া যাবে বলে গবেষক মহলের একাংশের দাবি৷
এই যন্ত্র মাছটি নড়াচড়া করতে পারে, তার লেজও রয়েছে, এবং প্রয়োজনে তার গতিও আপাতত বাড়ানো যাবে বলে জানানো হয়েছে৷
মার্কিন নেভি অফিসার জেরি লেডেম্যানই এই পুরো প্রকল্পটি রূপায়ণের দায়িত্বে রয়েছেন৷ তাঁর মতে অবশ্য এই ঘটনাটা নতুন কিছু নয়৷ পৃথিবীতে এতদিন ধরে চলে আসা নানা বিবর্তনকে শুধুমাত্র যন্ত্রবন্দী করার প্রয়াসই আমরা করছি৷ এখন তা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর্যায়ে রয়েছে৷
আপাতত এই প্রয়াস কতটা সাফল্য অর্জন করতে পারে, তার জন্য আগামী বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে৷

FacebookTwitterGoogle+Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*