মন্ত্রীদের পর এবার প্রশাসনের আমলাদেরও ১৫ দিনের মধ্যে সম্পত্তির হিসাব চাইলেন আদিত্যনাথ

upজাতীয় ডেস্ক ৷৷ মন্ত্রীদের পর এবার প্রশাসনের আমলাদেরও ১৫ দিনের মধ্যে আয় ও স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির হিসাব দিতে বললেন যোগী আদিত্যনাথ। গতকাল মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার পরই তিনি দু্র্নীতি মোকাবিলাকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন বলে বার্তা দেওয়া হচ্ছে। গতকালই ক্যাবিনেট মন্ত্রী শ্রীকান্ত শর্মা বলেছিলেন, দুর্নীতির মূলোত্পাটন করাই দলের মূল এজেন্ডা। নতুন মন্ত্রীদের সঙ্গে প্রারম্ভিক বৈঠকেই তিনি ১৫ দিনের ভিতরে তাঁদের আয় ও সম্পত্তির বিস্তারিত তথ্য জমা দিতে বলেছেন। এদিন প্রশাসনের শীর্ষকর্তাদের সঙ্গে প্রথম বৈঠকে বসেন আদিত্যনাথ। সেখানে ৬৫ জন অফিসার ছিলেন। তাঁদের বিজেপির সংকল্প পত্রের একটি করে কপি দিয়ে তার রূপায়ণ সুনিশ্চিত করতে বলা হয়। উপ মুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্য জানান, ওই পদস্থ অফিসারদের নিজ নিজ দপ্তরের ব্যাপারে রোডম্যাপ তৈরি করতে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এছাড়া রবিবার রাতে মৌআইমা থানার অধীন এলাকায় নিজের বাসভবনের কাছেই বিএসপি মহম্মদ শামির খুন হওয়ার ঘটনায়ও গভীর উদ্বেগ জানিয়ে তিনি রাজ্যের ডিজিপি জাভেদ আহমেদকে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কোনওরকম শৈথিল্য বরদাস্ত করা হবে না। তাঁকে বলা হয়েছে, রাজ্য়ের ৭৫টি জেলার সবকটিতে আইনশৃঙ্খলার কী হাল, তা জানতে তিনি যেন প্রতিটি জেলার পুলিশ সুপারের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করেন। একটি সূত্রের খবর, আদিত্যনাথের শপথ গ্রহণের পরদিনই এলাহাবাদ নগর নিগম কর্তৃপক্ষ শহরের দুটি কসাইখানা বন্ধ করে দিয়েছে। বছরখানেক আগে কসাইখানা দুটি বন্ধ করে দিতে বলেছিল ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইব্যুনাল। বিজেপির নির্বাচনী ইস্তাহারে রাজ্যে সব বেআইনি কসাইখানা বন্ধ করার ঘোষণা রয়েছে। একটি মহল থেকে জানানো হয়েছে, রাজ্যে বৈধ কসাইখানার সংখ্যা প্রায় ১৩০টি। তবে তার বাইরে প্রচুর কসাইখানা তৈরি হয়েছে নিয়ম ভেঙে, যেগুলির অধিকাংশই পশ্চিম উত্তরপ্রদেশে।
FacebookTwitterGoogle+Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*