রাজধানী এক্সপ্রেসে দিল্লি থেকে হাওড়া মাত্র ১২ ঘণ্টায়, গতি বাড়ানোর প্রস্তাব

rjজাতীয় ডেস্ক ৷৷ দিল্লি থেকে হাওড়া ও মুম্বইগামী রাজধানী এক্সপ্রেসের গতি বাড়ানোর প্রস্তাব দিতে চলেছে ভারতীয় রেল। প্রস্তাব অনুযায়ী, এই দুটি ট্রেনের গতি বাড়িয়ে ঘণ্টায় ২০০ কিমি করা হবে। ফলে দেশের সবচেয়ে দ্রুতগামী ট্রেন হয়ে যাবে রাজধানী এক্সপ্রেস। বর্তমানে দিল্লি থেকে হাওড়া ও মুম্বই যেতে সময় লাগে ১৭ ঘণ্টা। এই প্রস্তাব কার্যকর হলে সময় পাঁচ ঘণ্টা কমে ১২ ঘণ্টায় নেমে আসবে। বর্তমানে দেশের সবচেয়ে দ্রুতগামী ট্রেন গতিমান এক্সপ্রেস। দিল্লি থেকে আগরাগামী এই ট্রেনের সর্বোচ্চ গতি ঘণ্টায় ১৬০ কিমি। সেখানে রাজধানী এক্সপ্রেসের গতি ঘণ্টায় গড়ে ৭৫ কিমি। বেশিরভাগ ভারতীয় ট্রেনের গতিই ঘণ্টায় ১০০ কিমির কম। এক্সপ্রেস ও মেল ট্রেনগুলির গতি ঘণ্টায় গড়ে ৫২ কিমি। মালবাহী ট্রেনগুলির গতি একেবারেই কম। এই ধরনের ট্রেনগুলি ঘণ্টায় গড়ে ২২ কিমি গতিতে ছোটে। রেল মন্ত্রক ট্রেনগুলির গতি বাড়ানোর উদ্যোগ নিচ্ছে। রাজধানী এক্সপ্রেসের গতি বাড়ানোর প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় নোট হিসেবে পেশ করা হবে। অতীতে রেলবাজেটে কয়েকশো প্রকল্পের কথা ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু সেগুলির জন্য মন্ত্রিসভার অনুমোদন নেওয়া হয়নি। প্রায় পাঁচ লক্ষ কোটি টাকার ৩৯৪টি প্রকল্প ঝুলে রয়েছে। রাজধানী এক্সপ্রেসের গতি বাড়ানোর প্রস্তাবেরও যাতে সেই পরিণতি না হয়, তার জন্য উদ্যোগ নিচ্ছেন খোদ রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু। তিনি জানিয়েছেন, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে নতুন প্রস্তাব কার্যকর করার কাজ শুরু হবে। এই প্রকল্পে খরচ ধরা হয়েছে ১৮,১৬৩ কোটি টাকা। দু-তিন বছরের মধ্যেই কাজ শেষ হয়ে যাবে। বৈদ্যুতিন ব্যবস্থার উন্নতি, ট্র্যাক উঁচু করা, বেড়া দেওয়ার কাজগুলির উপর জোর দেওয়া হচ্ছে। রেল মন্ত্রক সূত্রে খবর, সোনালি চতুর্ভুজ প্রকল্পে ৯,১০০ কিলোমিটারের মধ্যে ৬,৪০০ কিমি রেলপথেই ঘণ্টায় ১৩০ কিমি গতিতে ট্রেন চালানোর পরিকাঠামো নেই। ৭৩০টি জায়গায় গতি বাধাপ্রাপ্ত হয়। এই পথে ২,৭৩৬টি লেভেল ক্রসিং আছে। এই সমস্যাগুলি দূর করার চেষ্টা চলছে। ব্রিটেনে ১৯৭৬ সাল থেকে ঘণ্টায় ২০০ কিমি গতিতে ট্রেন চলছে। ফ্রান্সে ৩০০ কিমির বেশি গতিতে ট্রেন চলে। বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগামী বাণিজ্যিক ট্রেন সাংহাই ম্যাগলেভের গতি ঘণ্টায় ৪৩০ কিমি। ভারতে রেল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যোগাযোগের মাধ্যম হলেও, গতি বাড়ানো যাচ্ছে না। সেই কারণেই এবার নড়েচড়ে বসেছে রেল মন্ত্রক।
FacebookTwitterGoogle+Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*