যান দুর্ঘটনার শিকার এম্বুলেন্স, এম্বুল্যান্সে কোভিড রোগী থাকায় সাহায্যে এগিয়ে আসেনি কেউ, পিপিই কিট পরেই চাকা সারাইয়ে এম্বুলেন্স চালক

বিশ্বেশ্বর মজুমদার, শান্তিরবাজার, ১৫ ডিসেম্বর || যান দুর্ঘটনার শিকার হলো এম্বুলেন্স। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, শনিবার শান্তিরবাজার শহরের রামকৃষ্ণ আশ্রম সংলগ্ন এলাকায় একটি এম্বুলেন্স গাড়ীর সঙ্গে একটি অটোর সংঘর্ষ ঘটে। দুর্ঘটনার পরবর্তী সময় অটোটি ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। দুর্ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে এম্বুলেন্সটি জাতীয় সড়কের মাঝে বিকল হয়ে পরে। এম্বুলেন্স গাড়ীটির পিছনের চাকা নষ্ট হয়ে যায়। জানা যায়, এম্বুলেন্সটি কলাছড়া প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে কোভিড পজেটিভ এক গর্ভবতী মহিলাকে নিয়ে আগরতলার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। এম্বুলেন্স নষ্ট হয়ে যাওয়ায় এম্বুলেন্স চালক চারিদিকে সাহায্যের জন্য আবেদন করেন। কিন্তু করোনা পজেটিভ রোগী হওয়াতে এগিয়ে আসলো না কেউ। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় দমকল বাহিনীর কর্মীরা ও আরক্ষা দপ্তরের কর্মীরা। সকলে উপস্থিত হলেও মুমুর্ষু রোগীকে সাহায্যে কেউ এগিয়ে আসলো না কেউ। রোগীর সাহার্যাথে শান্তিরবাজার জেলা হাসপাতালে ফোন করা হলে জানা যায় জেলা হাসাপাতালের ১০২ নাম্বারের এম্বুলেন্স বিকল হয়ে রেয়েছে। এই অসহায় অবস্থায় জাতীয় সড়কের মাঝে রোগী ও এম্বুলেন্স চালক প্রায় ২০ মিনিট নাগাদ অসহায় অবস্থায় দাড়িয়ে ছিল। অবশেষে এম্বুলেন্স চালক দিলীপ কুমার ত্রিপুরা পি পি ই কিট পরিধান করা অবস্থায় গাড়ী সারাই করতে শুরু করে। দিলীপ কুমার ত্রিপুরার এই অবস্থা দেখে স্থানীয় দুই যুবক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়। কিছু সময়ের মধ্যে দুই যুবকের সহযোগীতায় এম্বুলেন্সের চাকা পাল্টিয়ে এম্বুলেন্স চালক গন্তব্যস্থলের উদ্দ্যোশ্যে রোওনা দেয়।
অপরদিকে একইদিনে দক্ষিন জোলাইবাড়ী এলাকায় টি আর ০৮ বি ৭৮১৬ নাম্বারের পালসার বাইক জাতীয় সড়কে নিয়ন্ত্রন হাড়িয়ে দুর্ঘটনার কবলে পরে। এতে করে বাইক চালক সূর্যবাড়ীর বাসিন্দা জয়ন্ত কুমার ত্রিপুরা (২৮) গুরুতর আহত হয়। দুর্ঘটনার পরবর্তী সময় আহত যুবককে দমকল বাহিনীর কর্মীরা ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে জোলাইবাড়ী সামাজিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখান থেকে কর্তব্যরত চিকিৎসক যুবকের অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে শান্তিরবাজার জেলা হাসাপাতলে স্থানান্তিরত করে।

FacebookTwitterGoogle+Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*